সৈয়দপুরে মেয়র প্রার্থী আমজাদের মৃত্যু : নির্বাচন স্থগিত : শোকের ছায়ায় গোটা শহর


এসএপ্রিন্সঃ নীলফামারীর সৈয়দপুর পৌরসভার চারবারের নির্বাচিত মেয়র, আগামী ১৬ জানুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য পৌর নির্বাচনের মেয়র প্রার্থী, সাবেক সংসদ সদস্য ও উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আমজাদ হোসেন সরকার (৬৩) মারা গেছেন। বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ৬টায় ঢাকার বাংলাদেশ বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।
মেয়র প্রার্থী আমজাদের মৃত্যুতে আগামী ১৬ জানুয়ারি দ্বিতীয় দফায় অনুষ্ঠেয় সৈয়দপুর পৌর নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। দীর্ঘ ৩০ বছরের পৌর মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। তিনি স্ত্রী, ছেলে ও ভাইসহ অসংখ্য আত্মীয় স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।
এদিকে তার মৃত্যুর কারণে পৌরসভা নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। খুব শিগগিরই নতুন করে পৌরসভার তফসিল ঘোষণা করা হবে বলে জানান, সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা রবিউল আলম।
পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত ১৩ ডিসেম্বর বাংলাদেশ পরিবহণ শ্রমিক ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি আখতার হোসেন বাদলের জানাজা শেষে বাড়ি ফেরার পথেই তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। চিকিৎসকের পরামর্শে তাঁকে পরের দিন ঢাকায় ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার ডায়াবেটিস, হৃদরোগ ও শ্বাসকষ্টজনিত চিকিৎসা চলছিল। তাঁর লান্সে পানি জমাসহ কিডনি জনিত নানা সমস্যা দেখা দেয়।
গত ১০ দিন আগে তার করোনা পজিটিভ হলে চিকিৎসকদের পরামর্শে বাংলাদেশ বিশেষায়িত হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। এক সপ্তাহ যাবত সেখানে তিনি (আইসিইউ) নিবিড় পরিচর্চা কেন্দ্রে ছিলেন। তাঁর শারীরিক অবস্থা দিন দিন অবনতি হওয়ায় লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। এমতাবস্থায় তিনি আজ সকালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।
আমজাদ হোসেন সৈয়দপুর ডিগ্রি কলেজ থেকে স্নাতক শেষে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর পাস করেন। ছাত্র জীবনে ছাত্র মৈত্রীর সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন তিনি। পড়াশোনা শেষে তিনি সৈয়দপুরে এসে ওয়ার্কার্স পার্টির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত হন এবং ১৯৯০ সালে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। পরে তিনি পৌরসভার চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করে ১৯৯৩ ও ১৯৯৯ সালে পর পর দু’বার পৌর মেয়র নির্বাচিত হন।
এরপর তিনি ২০০১ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। পরবর্তীতে তিনি আবারও পৌরসভার মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ২০১১ ও ২০১৫ সালে মেয়র নির্বাচিত হন। চলতি দ্বিতীয় দফার পৌরসভা নির্বাচনের তফশিল ঘোষণা হলে তিনি ফের মেয়র পদে প্রার্থী হন। তবে এবার তিনি বিএনপির মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।
এদিকে মরহুমের পারিবারিক সূত্রে জানানো হয়েছে, আজ সন্ধ্যা নাগাদ মরহুমের লাশ সৈয়দপুরে আনা হবে। শুক্রবার বাদ জুমা পাটোয়ারীপাড়ায় তার প্রতিষ্ঠিত মকবুল হোসেন বিএম কলেজ প্রাঙ্গণে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। পরে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে। তার মৃত্যুতে সৈয়দপুরের সর্বস্তরের রাজনৈতিক, সামাজিক, ব্যবসায়িক সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ সুশীল সমাজ ও সাধারণ মানুষ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন এবং সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

শর্টলিংকঃ

About নিউজ ডেস্ক

View all posts by নিউজ ডেস্ক →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *