লিগ ওয়ানে শিরোপা ধরে রাখার অভিযান


আরিফ ইসলাম। ক্রীড়া ডেস্ক ।
ঘরের মাঠে বুধবার ইউলিয়ান ড্রাক্সলারের একমাত্র গোলে জিতেছে পিএসজি। আগের ম্যাচে তিনটি লাল কার্ড দেখা দলটিকে এবারও দ্বিতীয়ার্ধের অনেকটা সময় একজন কম নিয়ে খেলতে হয়েছে।
গত ২৩ অগাস্ট বায়ার্ন মিউনিখের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে ১-০ গোলে হারের আগে ইউরোপ সেরার প্রতিযোগিতায় টানা ৩৪ ম্যাচে গোল করেছিল পিএসজি। নতুন মৌসুমে ঘরোয়া লিগে নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচে লঁস ও মার্সেইয়ের বিপক্ষে সেই একই ব্যবধানে হারে তারা।
লিগে শুরুর ধাক্কা কাটিয়ে ওঠার লক্ষ্যে নামা পিএসজিকে এ ম্যাচেও চেনা রূপে দেখা যায়নি। অধিকাংশ সময় বল দখলে রেখে খেললেও খুব বেশি নিশ্চিত সুযোগ তৈরি করতে পারেনি তারা।
দ্বাদশ মিনিটে ম্যাচের প্রথম সুযোগটি পায় পিএসজি। তবে আনহেল দি মারিয়ার ক্রসে আট গজ দূর থেকে মাউরো ইকার্দির হেড ক্রসবারের ওপর দিয়ে চলে যায়। পরে আরেকটি লক্ষ্যভ্রষ্ট হেডে হতাশ করেন এই আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার।
৬৫তম মিনিটে লাল কার্ডের ধাক্কাটা খায় পিএসজি। দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন ফরাসি ডিফেন্ডার আবদু দিয়ালো। আর ৮৫তম মিনিটে পায়ে চোট পেয়ে দুজনের সহায়তায় মাঠ ছাড়েন দলটির আরেক ডিফেন্ডার বদলি নামা হুয়ান বের্নাত। ৯ জনের দলে পরিণত হয় টানা তিনবারের চ্যাম্পিয়নরা।
এর মাঝে ৭৭তম মিনিটে আরেকটি দারুণ সুযোগ নষ্ট করেন ইকার্দি। ড্রাক্সলারের নিচু পাস পেয়ে ছয় গজ দূর থেকে গোলরক্ষক বরাবর শট নেন তিনি।
অবশেষে যোগ করা সময়ের তৃতীয় মিনিটে গোলের দেখা পায় পিএসজি। কাছ থেকে হেডে ৩ পয়েন্ট নিশ্চিত করেন জার্মান মিডফিল্ডার ড্রাক্সলার।
তৃতীয় ম্যাচে এসে প্রথম গোল ও জয় পাওয়া পিএসজি আছে ১৫তম স্থানে। সমান তিন ম্যাচে দুই জয় ও এক ড্রয়ে ৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রেন। সমান পয়েন্ট নিয়ে পরের দুটি স্থানে যথাক্রমে মোনাকো ও লিল।

শর্টলিংকঃ

About নিউজ ডেস্ক

View all posts by নিউজ ডেস্ক →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *