Wed. May 18th, 2022

স্টাফ রিপোর্টারঃ নীলফামারীর ডিমলায় পৃথক দুইদিনে অভিযান চালিয়ে ২১টি ভারতীয় গরু আটক করেছে বিজিবি ও পুলিশ।
বিজিবি ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ভারতীয় সীমান্ত দিয়ে চোরাকারবারী সদস্যরা সক্রিয় হয়ে অবৈধ পথে গরু আনায় ব্যস্ত সময় পার করছে। গত শুক্রবার(১৩মে) মধ্যরাতে উপজেলার পূর্ব ছাতনাই ও পশ্চিম ছাতনাই ইউনিয়নের সীমান্ত দিয়ে চোরাকারবারিরা অবৈধভাবে নদী পথে ভারতীয় গরু আনার সময় থানার হাট ও কালিগঞ্জ বিজিবি ক্যাম্পের সদস্যরা ১৩টি গরু ও শনিবার(১৪ মে) ভোররাতে পূর্ব ছাতনাই ইউনিয়নের সলতুর মোড় এলাকা থেকে ৮টি ভারতীয় গরু আটক করে (ডোমার-ডিমলা) সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার আলী মোহাম্মদ আব্দুল্লাহর নেতৃত্বে ডিমলা থানা পুলিশ।
স্থানীয়রা জানান, উপজেলার সীমান্ত এলাকা পূর্ব ছাতনাই, পশ্চিমছাতনাই, বালাপাড়া, খগাখড়িবাড়ি, টেপাখড়িবাড়িসহ বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে ভারতীয় গরু চোরাই পথে এনে দেশের বিভিন্ন জেলায় পাচাঁর করা হচ্ছে। প্রতি সপ্তাহে গড়ে প্রায় ৪০০ গরু আমদানি করা হচ্ছে এসব সীমান্ত এলাকা দিয়ে। কয়েক দিনের মধ্যেই আমদানির সংখ্যা চার গুণ বাড়বে বলে এলাকাবাসীর ধারণা।
আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুস সাত্তার সরকার বুলু জানান, সীমান্ত দিয়ে প্রতিনিয়ত ভারতীয় গরু ও মাদক চোরাচালান হচ্ছে। বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ জানিয়েও থামছে না চোরাকারবারিদের দৌড়াত্ব। উল্টো মামলা হামলার স্বীকার হতে হচ্ছে।
থানার হাট ক্যাম্পের নায়েক সুবেদার আবু সাইদ বলেন, প্রতিদিনের ন্যায় শুক্রবার মধ্যরাতে টহলরত অবস্থায় ভারতীয় সীমান্ত দিয়ে চোরাকারবারী সদস্যরা অবৈধভাবে নদী পথে ভারতীয় গরু আনার সময় বাংলাদেশ সীমান্তে আমরা ১৩টি গরু আটক করি। এ সময় চোরাকারবারী টিমের সদস্যরা ভুট্টাক্ষেত দিয়ে পালিয়ে যাওয়ায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।
ডিমলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা লাইছুর রহমান জানান, ডিমলায় ভারতীয় সীমান্ত দিয়ে একটি চক্র রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে চোরাই পথে গরু এনে হাটবাজারে বিক্রি করছে। এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ডিমলা থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৮টি গরু আটক করে। ধারনা করা হচ্ছে এগুলো ভারতীয় গরু। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!