Thu. Jan 20th, 2022


এসএ প্রিন্সঃ নীলফামারী জেলা পরিষদের আয়োজনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বছর ব্যাপী ‘বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধকে জানো’ কর্মসূচির উদ্বোধন এবং শেখ মুজিবুর রহমানের সংগ্রামী জীবন ও মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কিত সাধারণ জ্ঞান ভিত্তিক প্রকাশনা ‘অন্বেষণ’ এর মোড়ক শনিবার বিকেলে উন্মোচন করা হয়। অনুষ্ঠানটিতে দেশের খেতাব প্রাপ্ত বীরমুক্তিযোদ্ধাসহ উত্তরের ১৪ জেলার বীর মুক্তিযোদ্ধারা অংশগ্রহন করেন। এক সাথে এত বীরমুক্তিযোদ্ধাদের পদচারনায় মিলনমেলায় পরিনত হয় নীলফামারীর শহীদ মিনার প্রাঙ্গন।
নীলফামারীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোক্তারুজ্জামানসহ খেতাব প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধারা উপস্থিত ছিলেন।
নীলফামারী জেলা পরিষদ প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ অতুল মন্ডল ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রোকনুজ্জামান জুয়েল অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন।
অনুষ্ঠানে সম্মানিত বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত খেতাব প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধারা হলেন, কুড়িগ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা শওকত আলী সরকার বীর বিক্রম, গাইবান্ধার বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহাবুব এলাহী রঞ্জু বীর প্রতীক, চাঁদপুরের বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান কবীর বীর প্রতীক, নড়াইলের বীর মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিনিয়ার গোলাম আজাদ বীর প্রতীক, জামালপুরের বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ সাদরুজ্জামান হেলাল বীর প্রতীক, ঢাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন বীর প্রতীক, ঢাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আব্দুল মান্নান বীর প্রতীক, জামালপুরের বীর মুক্তিযোদ্ধা মিজানুর রহমান খান বীর প্রতীক, লালমনিরহাটের বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন আজিজুল হক বীর প্রতীক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মতিউর রহমান বীর প্রতীক।
অনুষ্ঠানে নীলফামারী জেলার ৬টি উপজেলার বীর মুক্তিযোদ্ধা, তাদের সন্তান, শিক্ষার্থী এবং গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গরসহ বিভিন্ন জেলা থেকে খেতাব প্রাপ্ত বীরমুক্তিযোদ্ধা, যুদ্ধকালীন কমান্ডার ও মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ছাড়াও বীর মুক্তিযোদ্ধা ও নতুন প্রজন্মের শত শত মানুষের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠানস্থল মুখরীত হয়ে ওঠে।
সন্ধ্যায় সৈয়দপুর লায়ন্স স্কুল ও কলেজে শিক্ষার্থীদের সাথে ‘বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধকে জানো’ কর্মসূচি অনুযায়ী জাতির পিতার আদর্শে ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় শিক্ষার্থীদের অনুপ্রাণিত করতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
নীলফামারী জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীনকে এমন আয়োজনের জন্য বক্তারা সাধুবাদ জানান।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে উজ্জীবিত করার লক্ষে আজকে আমাদের এই অনুষ্ঠান। আমাদের বর্তমান প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের আদর্শে অনুপ্রাণিত করতে আমাদের আজকের এই অনুষ্ঠান আশা করি অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে। আমাদের এই কর্মসূচির মাধ্যমে বীর মুক্তিযোদ্ধারা জেলার প্রায় পাঁচ শতাধিক স্কুল-কলেজে গিয়ে শিক্ষার্থীদের সাথে মতবিনিময় করবেন ও শিক্ষার্থীদের জাতির পিতার সংগ্রামী জীবন ও মুক্তিযুদ্ধের গল্প শোনাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!