নীলফামারীতে অটোচালক ও মাদ্রাসা ছাত্রীর লাশ উদ্ধার


স্টাফ রিপোর্টারঃ গত দুই দিনে পৃথক দুইটি ঘটনায় নীলফামারীতে অটোচালকের হাত-পা বাধা ও কিশোরগঞ্জে মাদ্রাসা পডুয়া ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
সোমবার(২২ফেব্রæয়ারী) দুপুরে নীলফামারী সদর উপজেলার চাপড়া সরমজানী ইউনিয়নের ইটাপীর ব্রীজ সংলগ্ন সড়ক থেকে আব্দুল হালিম (৪৫) নামে এক অটোচালকের হাত-পা বাঁধা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সে একই ইউনিয়নের নতিব চাপড়া গ্রামের মৃত. আফসার আলীর ছেলে। নিহতের পরিবারের বরাত দিয়ে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান জানান, রবিবার সকালে অটো নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে যান হালিম। রাতে বাড়িতে না ফিরলে খোঁজাখুজি শুরু হয়। এক পর্যায়ে সোমবার সকালে ব্রীজ সংলগ্ন রাস্তায় তাকে উবুর হয়ে পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয়রা। পরে তার লাশ শনাক্ত করেন। চেয়ারম্যান বলেন, অটো চালিয়ে সংসার চালাতেন তিনি। ধারণা করা হচ্ছে অটো ছিনতাই করে হত্যা করা হয় তাকে। নীলফামারী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহমুদ উন নবী জানান, তার শরীরে ছুরিকাঘাতের আঘাত রয়েছে। লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছি।
এদিকে নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে নানার বাড়ি বেড়াতে এসে এসমা আক্তার (১৩) নামে কেশবা ফাজিল মাদ্রাসার ৬ষ্ট শ্রেণির এক ছাত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। রবিবার বিকালে সদর ইউনিয়নের সিট রাজিব গ্রামের মাঠের বাজার নামক স্থানে এ ঘটনাটি ঘটে।
নিহত ওই ছাত্রী একই ইউনিয়নের বাজেডুমরিয়া মাঝাপাড়া গ্রামের আফতাজুল ইসলামের মেয়ে।
এলাকাবাসি জানায়, নিহতের মা আঞ্জুয়ারা তার মেয়ে এসমা আক্তারকে সঙ্গে নিয়ে শনিবার সকালে বাবার বাড়িতে যায়। রবিবার সেখানে মা ও মেয়ে দুইজনে বাড়ির পার্শ্বের রাস্তায় ক্ষেতের সরিষার ধুলা পরিস্কার করছিল। গোসল করে দুপুরে খাওয়ার জন্য এসমাকে তার মা বাড়িতে পাঠায়। পরে বাড়িতে এসে আঞ্জুয়ারা তার বাবা আবুল হোসেনের ঘরের আড়েঁ ওড়না পেঁচানো অবস্থায় বিছানায় হাটু গাড়া মেয়ের লাশ দেখতে পায়।

শর্টলিংকঃ

About নিউজ ডেস্ক

View all posts by নিউজ ডেস্ক →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *