Wed. May 18th, 2022


এসএপ্রিন্সঃ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা বাস্তবায়নে নীলফামারী জেলার ছয় উপজেলা থেকে বিভিন্ন জেলায় জরুরী ভিত্তিতে ইরি-বোরো ধান কাটার জন্য কৃষি শ্রমিক পাঠানো শুরু হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে স্ব স্ব উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় এপর্যন্ত তৃতীয় দফায় ধান কাটতে ১হাজার দুইশত ৪০ জন শ্রমিককে নওঁগা, বগুড়া, নাটোর, নারায়নগঞ্জ, কুমিল্লা ও গাজীপুরে পাঠানো হয়েছে। সোমবার তাদেরকে মাইক্রোবাসের মাধ্যমে পাঠানো হয়। মাইক্রোবাস যোগে ইরি-বোরা ধান কাটার জন্য শ্রমিকদের যাত্রা নির্বিঘœ করতে তাদের কাছে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা কৃষি অফিসারের যৌথ স্বাক্ষরিত একটি প্রত্যায়নপত্র প্রদান করা হয়। সোমবার দুপুরে নীলফামারী সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এলিনা আকতারের উপস্থিতিতে উপজেলা কৃষি অফিসার কামরুল হাসান কৃষি শ্রমিকদের দলনেতার হাতে প্রত্যয়নপত্রটি হস্তান্তর করেন। এছাড়াও করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে শ্রমিকদের মুখে ব্যবহারের জন্য উপজেলা প্রশাসন থেকে প্রত্যেককে একটি করে মাস্ক দেওয়া হয়। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা প্রকৌশলী নুর উদ্দিন আহম্মেদ, উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা মঞ্জুরুল মোর্শেদ, কৃষি সম্প্রসারন অফিসার মিজানুর রহমান প্রমূখ।
উপজেলা কৃষি অফিসার কামরুল হাসান জানান, সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও সদস্যদের মাধ্যমে কৃষি বিভাগ শ্রমিকদের তালিকা সংগ্রহ করেন। দফায় দফায় ধান কাটার জন্য কৃষি শ্রমিকদের নীলফামারী থেকে অন্য জেলায় ধান কাটতে পাঠানো হচ্ছে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এলিনা আকতার জানান, বর্তমানে ইরি-বোরো’র ভর মৌসুম। আর ইতোমধ্যে বিভিন্ন জেলায় ইরি বোরো ধান কাটা-মাড়াই শুরু হয়েছে। কিন্তু চলমান করোনা ভাইরাস সংক্রমন প্রতিরোধে দেশব্যাপী চলছে কঠোর লকডাউন। এ কারণে সকল যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। ফলে দেশের উত্তর জনপদের শ্রমিকরা যানবাহন বন্ধ থাকায় ধান কাটাতে দেশের উত্তর, দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলো যেতে পারছেন না। এ অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিভিন্ন জেলায় জরুরী ভিত্তিতে ইরি-বোরো ধান কাটার জন্য কৃষি শ্রমিক প্রেরণের নিদের্শনা দিয়েছেন। আর প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়নে বিভিন্ন জেলায় জরুরী ভিত্তিতে চলতি ইরি-বোরা মৌসুমে ধান কাটা শ্রমিক পাঠানো শুরু হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!